এভাবেই পৃথিবীর দিকে ছুটে আসছে চীনা রকেটের অংশ

নিউজ ডেস্ক : মহাকাশ থেকে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে পৃথিবীর দিকে ছুটে আসা চীনা রকেটের ধ্বংসাবশেষের ছবি প্রথমবারের মত ধরা পড়েছে কোনো ক্যামেরায়। ছবিটি তুলেছেন ইতালির জ্যোতিঃপদার্থবিদ গিয়ানলুকা মাসি।


চীনের তৈরি বিশাল আকৃতির লং মার্চ ৫বি রকেটটি শনিবার (৮ মে) পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করবে এবং সেটি ইতালিতে পড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ঠিক কোন সময়ে এবং কোন অঞ্চলে এটি পতিত হবে তা নির্দিষ্ট করে বলা এখনও সম্ভব হয়নি।

এ ধরণের পূর্বাভাস মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে দেয়া সম্ভব হয় কারণ আহ্নিক গতির ফলে বায়ুমণ্ডলে প্রবেশের পর পতন উল্লেখযোগ্য মাত্রায় পরিবর্তিত হয়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২৩ টনের এই রকেটটি বায়ুমণ্ডলে পতিত হওয়ার সময়েই টুকরো টুকরো হওয়া শুরু করবে এবং অধিকাংশই আগুনে পুড়ে যাবে। পুড়ে যাওয়ার পর বাকি অংশগুলোই পৃথিবীর ভূমিতে পড়বে। পৃথিবীর ৭০ ভাগই সাগর হওয়ায় সাগরে পড়ার সম্ভাবনাই বেশি, তবে অবশ্যই এটি নিশ্চিত নয়।

ইতালীয় জ্যোতিঃপদার্থবিদ গিয়ানলুকা মাসি অনলাইনে একটি ভার্চুয়াল টেলিস্কোপ প্রকল্প পরিচালনা করেন। তিনি ১৭ ইঞ্চির প্যারমাউন্ট রোবটিক টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এই রকেটের ০.৫ সেকেন্ড এক্সপোজারের একটি ছবি তুলতে সক্ষম হয়েছেন।

ছবিটির বর্ণনায় মাসি লিখেছেন, ‘ছবিটি তোলার সময় রকেটটি আমাদের টেলিস্কোপ থেকে ৭০০ কিলোমিটার দূরে ছিল। তখন সূর্য ছিল দিগন্ত থেকে কয়েক ডিগ্রি নিচে। তাই আকাশ ভীষণ উজ্জ্বল ছিল।’

গত ২৮ এপ্রিল কক্ষপথে স্থাপনের উদ্দেশ্যে ইংরেজি টি আকারের মহাকাশ স্টেশনের মূল মডিউলটি উৎক্ষেপণ করতে লং মার্চ ৫বি রকেটটি ব্যবহার করা হয়। রকেটটি মহাকাশ স্টেশন থেকে আলাদা হয়ে যাওয়ার পর কক্ষপথ থেকে বিচ্যুত হয়ে যায়। আগামী ২০২২ সালের মধ্যে নিজস্ব মহাকাশ স্টেশন প্রস্তুত করে ফেলতে চায় চীন। এজন্য আরও ১০টি উৎক্ষেপণের প্রয়োজন হবে।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাসভবন হোয়াইট হাউস জানিয়েছে তারা চীনের নিয়ন্ত্রণহীন রকেটটির ঝুঁকি সম্পর্কে অবগত আছেন।

বুধবার হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকি বলেন, ‘মহাকাশে ধ্বংসাবশেষ এবং মহাকাশভিত্তিক কার্যক্রম বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে ক্রমবর্ধমান জটের ঝুঁকি মোকাবিলায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

তিনি বলেন, ‘নেতৃত্ব উন্নয়ন ও দায়িত্বশীল মহাকাশ আচরণের জন্য আমরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে কাজ করতে চাই। এটা সব দেশের স্বার্থ যে মহাকাশ কার্যক্রমে দীর্ঘমেয়াদী ও টেকসই নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।’

এদিকে বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন জানিয়েছেন, চীনা রকেটটি গোলা ছুড়ে নামানোর পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের নেই।

লয়েডও সাকির কথায় সুর মিলিয়ে চীনের কার্যক্রমের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, ‘আমি মনে করি, আমরা যারা মহাকাশে কার্যক্রম পরিচালনা করি তাদের একটি শর্ত থাকা উচিত, অথবা নিরাপদ ও বিবেচনার সঙ্গে কার্যক্রম চালাতে শর্ত থাকা উচিত।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!